Globe Road Poetry Festival | Shanghati Literary Society

Shanghati Oral History project looking at poets from East London 1960 – 1980

The project primarily focuses on the poets from the Bengali community but will also be collecting memories of poets from other backgrounds.

‘Poetry – the inseparable part of Bengali life 1960 to 1980’ is an oral history project by Shanghati Literary Society which was established in 1989 to enhance and promote Bengali literature amongst the Bengali community in London.

The oral history project aims to help reveal the rich heritage of poetry in East London between 1960 – 1980, with a particular focus on the East End Bengali community.  The period represents a decade before and a decade after the creation of Bangladesh in 1971, and this period was partly selected to help understand the impacts of the tumultuous birth of a new country on community poetry.

The project also aims to collect the memories of non-Bengali poets from East London. East London experienced major changes and disruption during that period, caused by various social and political factors such as post was immigration, visible rise in racist attacks, decline of local industries, closure of docks, and rising unemployment. The inclusion of poetry by non-Bengali poets will help develop an understanding of the shared and different worlds lived and experienced by the diverse communities of East London.

The project will document the memories of forty community poets through oral history and collect 100 Bengali and English poems. These will be included in a printed publication and exhibited in arts and cultural venues across East London in 2017.

We are also looking for volunteers for other roles:

Events and Publicity Volunteers

We are seeking two volunteers to assist the project manager in organising the launch of the publication and touring exhibition.

Transcribers and Proof Readers/Editors

We are seeking volunteers to transcribe interviews carried out in English and proofread and edit transcribed materials.

Bengali speaking interpreters

We are seeking volunteers who will be able to assist non – Bengali Speaking Oral History volunteers to interview Bengali speaking participants with language barriers.

Online Exhibition Assistant Producer

We are going to be producing an online exhibition showcasing snippets from the collection. We are seeking volunteers with website management experience.

Application Deadline for Oral History Volunteers and Events & Publicity Volunteers:

28 February 2016

Please view the Volunteer pack for further information.

To find out more information about the organisation please visit our website www.shanghatioralhistory.com

  Home [www.shanghatioralhistory.com]www.shanghatioralhistory.com

Shanghati Literary Society is a renowned name amongst Bengali and the non-Bengali communities around the world. It was established in 1989 by a small group of poets …

For any queries please email faridha.karim@shanghatioralhistory.com

Faridha Karim | Project Manager

Poetry the Inseparable part of Bengali Life 1960 – 1980

Shanghati Literary Society | 83-85 Nelson Street | London | E1 2HN
07427 832 361

The project aims to help reveal the rich heritage of poetry in East London during 1960-1980, primarily by Bengalis, through oral history and collecting community poems.
TWITTER: Poetic_EastEnd
FACEBOOK: Shanghati Oral History Project

Get Involved
Become a Volunteer
1. Oral History Volunteer
2. Publicity and Events Volunteer

Do you know any First Generation Bangladeshi poets living in the East End betwen 60s to 80s?
Get in touch Faridha.Karim@Shanghatiporalhistory.com


 

গ্লোবরোড কবিতা উৎসব ২০১৫


কুইনমেরী ইউনিভার্সিটি আয়োজনে আগামী ১৩ থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বিলেতের মূলধারার কবিদের অংশগ্রহণে তিনদিন ব্যাপী গ্লোবরোড কবিতা উৎসব। উক্ত কবিতা উৎসবে সংহতি সহযোগী সংগঠন হিসাবে অংশগ্রহণ করছে। অবশ্যই সংহতির সম্পৃক্ততার মাধ্যমে বিলেতের মূলধারার সাহিত্যে বাংলাভাষার কবি ও কবিতায় নতুন মাত্রা যুক্ত হলো।
কবিতা উৎসবে সংহতির কবিরা সহ বিলেতের বাংলাভাষার প্রধান প্রধান কবিরা উপস্থিত থাকবেন এবং তাদের কবিতা পড়বেন সাথে থাকবে সংহতির বিশিষ্ট আবৃতিকারদের আবৃতির ফাঁকে ফাঁকে সংগঠনের শিশুশিল্পীদের সংগীত পরিবেশনা ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে হলে অবশ্যই অগ্রিম টিকেট বুকিং দিতে হবে। তাই বিনামূল্যে আপনার উপস্থিতির জন্য সংহতির সাথে টিকেট বুকিং করার জন্য যোগাযোগ করুন: shanghati@yahoo.co.uk or check link below;
http://www.qmul.ac.uk/events/items/2015/162799.html

Globe Road Poetry Festival | Shanghati Literary Society

Britain’s pre-eminent Bangla literature society presents an afternoon of poetry, performance and song.

Date: 1:00PM, 15 November 2015 – 3:00PM, 15 November 2015
Venue: The Octagon, Queens’ Building, Mile End Campus, Mile End Road, London, E1 4NS
Book now
The Globe Road Poetry Festival takes place on and around Queen Mary University of London’s Mile End Campus between 13 and 15 November 2015. The three day world poetry festival celebrates the diversity of local and global poetic traditions in London’s East End.
About this event
Britain’s pre-eminent Bangla literature society, the Shanghati Literary Society, presents an afternoon of poetry, performance and song.
More information
• This is a free, public event, but advance booking is essential
About the festival
Performers
With readings by Linton Kwesi Johnson, Myung Mi Kim, Daljit Nagra, M. NourbeSe Philip and Caroline Bergvall, and a host of local and international poets, the festival will celebrate the diverse poetic traditions of the multicultural community of Tower Hamlets.

From the influential anti-fascist Basement Writers of the 1970s, to the hugely popular contemporary Bangla and slam poetry scenes, the borough has always been a crossroads of languages, cultures and literatures. Globe Road gathers poets and performers of all backgrounds to celebrate the stunning array of international poetry available on our doorstep.

Programme
Globe Road’s focus this year is Translation and Technology. The Festival will explore how translation and technology can both create and bridge divides, enable new forms of creativity and engage new audiences with traditional and experimental poetic forms.

Through a variety of performances, inclusive discussions, workshops, slams, exhibitions and other events, Globe Road aims to foster an atmosphere of interaction, dialogue and collaboration.

Advertisements
Posted in Uncategorized | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

সংহতি বাংলাদেশ শাখার অভিষেক

যুক্তরাজ্যের সংহতি সাহিত্য পরিষদের আদলে বাংলাদেশেও যাত্রা শুরু করেছে সংহতি। ১৬ অক্টোবর শুক্রবার বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হলো এর অভিষেক সন্ধ্যা। সংহতি বাংলাদেশের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন কবি-সাংবাদিক মুস্তাফিজ শফি আর সাধারণ সম্পাদক কবি আলোফ্রেড খোকন।
12080033_10153162664337405_2465215817677798662_oঅভিষেক সন্ধ্যায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশিষ্ট কবি নির্মলেন্দু গুণ লন্ডনে সংহতি আয়োজিত বাংলা কবিতা উৎসবের স্মৃতিচারণ করে বলেন, বিলেতে বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির চর্চায় সংহতি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। তাদের প্রতিটি উৎসব আয়োজনেই নিয়মিতভাবে বাংলাদেশ থেকে প্রবীন কবি লেখকরা যোগ দিচ্ছেন। সংহতি বাংলাদেশের মাধ্যমে এই মেলবন্ধন আরও বাড়বে।বিশেষ অতিথি বিজ্ঞানী ও লেখক আবেদ চৌধুরী আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, সংহতি সারাবিশ্বে ছড়িয়ে থাকা বাঙালি লেখকদের মধ্যে একটি যোগসূত্র তৈরি করতে পারবে।
12087054_10153162663702405_489955652377935365_o  কবি জীবনানন্দ দাশ ও শামসুর রাহমানকে উৎসর্গীকৃত অনুষ্ঠানের শুরুতেই তাদের কবিতা থেকে পাঠ করেন বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র আবৃত্তিসংঘের শিল্পীরা। সঙ্গীত পরিবেশন করেন ক্লোজআপ তারকা বাবু্। অনুষ্ঠানে যুক্তরাজ্যে সংহতি সাহিত্য পদক ২০১৫ প্রাপ্ত লেখক কবি মাশুক ইবনে আনিসের হাতে তার পদকটি তুলে দেন কবি নির্মলেন্দু গুণ। মাশুক ইবনে আনিস বাংলাদেশে অবস্থান করায় গত ১ আগস্ট লন্ডনে সংহতির রজতজয়ন্তী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে তার পদকটি গ্রহণ করতে পারেননি।

12095250_10153162664082405_498478171372903411_o

অনুষ্ঠানে উপস্থিত কবি-লেখক-শিল্পীদের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, রাজু আলাউদ্দিন, সরকার আমিন, কুমার চক্রবর্তী, আহমাদ মোস্তফা কামাল, শাহনাজ মুন্নী, নাজিব তারেক, শোয়াইব জিবরান, সৈকত হাবিব, মাহবুব আজীজ, সুমন্ত আসলাম, ওবায়েদ আকাশ, পিয়াস মজিদ, সেলিনা আক্তার প্রমুখ। যুক্তরাজ্য সংহতির প্রতিনিধি হিসাবে বক্তব্য রাখেন ইকবালুল হক। এসময় তিনি যুক্তরাজ্য সংহতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কবি ফারুক আহমেদ রনি, প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ছড়াকার-নাট্যকার আবু তাহেরের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের কবি-সাহিত্যিক সংস্কৃতিসেবীদের শুভেচ্ছা জানান।
12108307_490948317742853_7521236490069140958_n
অনুষ্ঠানে মুস্তাফিজ শফি জানান, গত ২৫ বছর ধরে সংহতি বিলেতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
 এটি এখন একটি পরিচিত ও প্রতিষ্ঠিত সংগঠন। সংহতি যুক্তরাজ্য এবং সংহতি বাংলাদেশ এখন যৌথভাবে বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির উন্নয়নে নানা কার্যক্রম গ্রহণ করবে। শুরুতেই তারা যৌথ উদ্যোগে একটি সাহিত্য অনলাইন এবং নিয়মিত কিছু প্রকাশনা করবেন। নিয়মিতভাবে আয়োজন করা হবে সাহিত্য আড্ডার। বইমেলায় অংশগ্রহনের পাশাপাশি প্রতিবছর ঢাকায় হবে সাহিত্য উৎসব। ঢাকা-লন্ডনের বাইরে সংহতি আস্তে আস্তে ছড়িয়ে যাবে বিশ্বের অন্যান্য শহরেও। বাংলাদেশের অন্যান্য বিভাগীয় শহরেও সংহতির কার্যক্রম বিস্তৃত হবে।
12068515_10153162663262405_6671278344816686633_o২৫ সদস্যের সংহতি বাংলাদেশ কমিটিতে আরও রয়েছেন সহসভাপতি শোয়াইব জিবরান, যুগ্ম সম্পাদক স্বকৃত নোমান, অর্থ সম্পাদক মো. আলী মনসুর, সাংগঠনিক সম্পদক রাজীব নূর, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মাইনুল শাহিদ, তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সৈকত হাবিব, সংস্কৃতি সম্পাদক নওশাদ জামিল, দপ্তর সম্পাদক শাহ আল মাসুদ রানা। নির্বাহী সদস্য শাকুর মজিদ, রাজু আলাউদ্দিন, মাহবুব আজীজ, আহমেদুর রশীদ টুটুল, ওবায়েদ আকাশ, আজিজুল পারভেজ, জাহানারা পারভীন, রহিমা আফরোজ মুন্নী, শিমুল সালাউদ্দিন, অদ্বয় দত্ত, পিয়াস মজিদ, শাহেদ সীমান্ত, লীনা ফেরদৌস, সেলিনা আক্তার ও ফাহমিদা রহমান।
Posted in Uncategorized | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

বর্ণাঢ্য আয়োজনে সংহতির জয়ন্তী ও সাহিত্য সম্মেলন:  কবি সাহিত্যিকদের মিলন মেলায়  দিনটি ছিল বাংলাভাষা ও বাঙালীর

আনোয়ারুল ইসলাম অভি:

বর্ণাঢ্য আয়োজনে সংহতির রজতজয়ন্তী ও সাহিত্য সম্মেলনটি মূলত কবি সাহিত্যিকদের মিলন মেলা আর সাহিত্য-সংস্কৃতির উৎসবে মেতে উঠেছিল।DSC_3907 বাংলাদেশের প্রথিতযশা কবি সাহিত্যিকদের সাথে বিলেতের কবি সাহিত্যিকদের মৌলিক মেলবন্ধনে মুখরিত ছিল বাঙালী পাড়া। DSC_3871সংহতি তার পঁচিশ বছর পূর্তি উপলক্ষে জয়ন্তী ও সাহিত্য সম্মেলনের  আয়োজন করে। ১ অগাষ্ট বাঙালী পাড়া খ্যাত  পূর্ব লন্ডনের টয়েনবি থিয়েটার হলে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে  ছিল  স্বাগত বক্তব্য, অতিথিদের আলোচনা,কবিতা পাঠ, আবৃত্তি, নৃত্য, শিশুশিল্পীদের পরিবেশনা, বাদ্যযন্ত্র সস্তুর এবং সঙ্গীত মুর্ছনায় বিমোহন উৎসবমুখর একটি দিন  ।DSC_3920 রজতজয়ন্তী উৎসবে বাংলাদেশ থেকে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে যোগদেন বাংলা সাহিত্যে বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় কবি, কথাসাহিত্যিক আনিসুল হক, কবি ও গবেষক শোয়াইব জিবরান। এছাড়াও উৎসবে কানাডা থেকে যোগ দেন কবি আব্দুল হাসিব এবং আমেরিকা থেকে কবি জিয়া উদ্দিন । কলকাতা থেকে যোগদেন সানতুর শিল্পী কুনাল সাহা এবং বাংলাদেশ থেকে কণ্ঠ শিল্পী বাদশা বুলবুল এবং শেখ রানা । DSC_3917বিলেতে  বাঙালীর  হীরন্ময় চেতনার প্রতীক পূর্ব লন্ডনের আলতাব আলী পার্ক থেকে দুপুর বারটায় কবুতর -ফেস্টুন উড়িয়ে উৎসবের শুরু হয়ে ব্রিকলেন- বাংলা টাউন হয়ে বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠানস্থল টয়েনবী হলে শেষ হয়। বাংলাদেশ থেকে আমন্ত্রিত অতিথি বাংলা সাহিত্যের বর্তমানDSC_3852সময়ের জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক আনিসুল হক বলেন- পঁচিশ বছর ধরে অভিবাসে চরম ব্যস্ততার মাঝেও একদল সাহিত্যপ্রেমী সাহিত্যের জন্য যেভাবে  কাজ করছে তা আমার কাছে অবিশ্বাস্য মনে হয়। বাঙালীর সবচেয়ে বড় গুণ হচ্ছে তারা যেখানেই যায় তার দেশটা কে সঙ্গে নিয়ে যায়। স্বাধীনতাত্তোর বাংলা সাহিত্য- বিষয় নির্ধারিত বক্তব্যে বলেন -বাংলাদেশ অনেক এগিয়েছে। ভাষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি, ক্রীড়া, কৃষি সবক্ষেত্রে আমাদের সাফল্য বিশ্বের অনেক দেশের চেয়ে সেরা। এবং আমরা অদূর ভবিষ্যতে অপ্রতিরুদ্ধ ভাবে এগিয়ে যাব। DSC_4600 আমাদের বাংলাদেশের দুটি দিক আছে, একটি হলো পজিটিভ বাংলাদেশ এবং অন্যটি হলো নেগেটিভ বাংলাদেশ। বড় আশার কথা হলো আমাদের পজিটিভ বাংলাদেশটাই বেশী এবং এখানে আমাদের প্রাণশক্তি তরুণরাই বেশী। গুণী এই কবি কথাসাহিত্যিক কে সংহতি  সংহতি গুণীজন সম্মাননা পদক প্রদান করে। DSC_4032 বাংলা সাহিত্যে আঞ্চলিক ভাষার প্রভাব- বিষয় নির্ধারিত বক্তৃতায় কবি গবেষক  ড.শোয়াইব জিবরান বলেন- বিলেতে বাংলাভাষীরা শক্তভাবে তাদের ভাষার শিকড়কে অর্থাৎ নিজ নিজ অঞ্চলের ভাষাকে ধরে রেখেছেন।যা বাংলা ভাষার জন্য অনেক পাওয়া। DSC_4011 তিনি আঞ্চলিক ভাষার বিভিন্ন উজ্জ্বল দিক তুলে ধরে বলেন- মানুষের ভেতর থেকে উচ্চারিত ভাষাকে কেউ দমিয়ে রাখতে পারেনা।অতিবোদ্ধার মতো যারা আমাদের ভেতরের উচ্চারিত ভাষাকে বাংলা ভাষা বলে মেনে নিতে চাননা তারা  আসলে একটা উপনিবেশিক চিন্তা ও গণ্ডির মধ্যে থেকেই এই সব কথা বলেন। DSC_4130 আশার কথা হলো- মানুষের  হৃদয়নিসৃত ভাষাই যে মূল- তা এখন দুনিয়াব্যাপী গবেষণায় সফল ভাবে উঠে আসতে শুরু করেছে। বিলেতের  সংহতি সাহিত্য সম্মেলন ও সাহিত্য সংস্কৃতিকর্মী অনুরাগীদের উদ্দেশ্যে বলেন- আমি সকাল এগারোটা থেকে এই অনুষ্ঠানে আপনাদের সাথে আছি, এখন রাত দশটা ছুঁই ছুঁই, অথচ হল ভর্তি দর্শক! DSC_4181 ভালোলাগার অনুভূতিটি ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব নয়। গুণী এই কবি, গবেষককে সংহতি বিশেষ সম্মাননা পদক প্রদান করা হয়। DSC_3987 এছাড়াও  মূলধারার কবি ষ্টিফেন ওয়াটস, সাংবাদিক কলামিস্ট আব্দুল গাফফার চৌধুরী, কবি কথা সাহিত্যিক সালেহা চৌধুরী, কবি শামীম আজাদ সংহতির ২৫ বছরের নানা কর্মের প্রসংশা সহ সংহতির সাথে তাদের সম্পৃক্ততা নিয়ে বিভিন্ন বিষয়ে আলোকপাত ও আলোচনায় অংশগ্রহন করেন। DSC_4040 রজতজয়ন্তী ও সাহিত্য সম্মেলনে ইউরোপসহ বিলেতের বিপুল সংখ্যক কবি, সাহিত্যিক, সংস্কৃতি অনুরাগীরা যোগ দেন। ১৯৮৯ সালে প্রতিষ্ঠিত সংগঠনটি বাংলাদেশ ও কলকাতার পর ধারাবাহিকভাবে সবচেয়ে বড় সাহিত্য ও সংস্কৃতির উৎসব এর আয়োজন করে অভিবাসে বাঙালীসহ ও মাল্টিকালচারাল সোসাইটিতে তৈরি করেছে তার স্বতন্ত্র পরিচিতি ও ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা। DSC_4016 বেলা আড়াইটা থেকে রাত এগারোটা পর্যন্ত বিরতিহীন চলা প্রাণবন্ত অনুষ্ঠানটি বিভিন্ন পর্বে উপস্থাপনায় ছিলেন দিলু নাসের, রেজুয়ান মারুফ, মুনিরা পারভিন, শামীম শাহান, ইকবাল হোসেন বুলবুল, শতরুপা চক্রবর্তী। DSC_4074সংহতির পরিবেশনায় কবি ফারুক আহমেদ রনি, আবু তাহের, ইকবাল হোসেন বুলবুল, তুহিন চৌধুরী, আনোয়ারুল ইসলাম অভি  ও আরাফাত তানিম এর  কবিতা আবৃত্তি করেন বিলেতের জনপ্রিয় আবৃত্তিশিল্পী শহিদুল ইসলাম সাগর,মুনিরা পারভিন ও সঞ্চিতা চৌধুরী। শিল্পী কুনাল সাহার  সানতুর এর সাথে কবিতা আবৃত্তির এইপর্বটি ছিল বিলেতে এই প্রথম ভিন্নধর্মী আবৃত্তির পরিবেশনা।DSC_4105 এবারে সংহতি সাহিত্য পদক পেয়েছেন কবি মাশুক ইবনে আনিস। কবিতার জন্য তাকে পুরস্কৃত করা হয়েছে। আজীবন সম্মাননা পদক লাভ করেছেন  বিশিষ্ট কবি ,কথা সাহিত্যিক সালেহা চৌধুরী এবং মূলধারার কবি ষ্টিফেন ওয়াটস। সংহতি মরণোত্তর পদক প্রদান করা হয়েছে- তাসাদ্দুক আহমদ এমবিইকে। বিশেষ সম্মাননা পদক পেয়েছেন-কবি মুস্তাফিজ  শফি, কানাডা থেকে উৎসবে যোগ দেয়া কবি আব্দুল হাসিব, আমেরিকা থেকে  কবি জিয়া উদ্দিন, বাংলাদেশ থেকে সংগীত শিল্পী বাদশা বুলবুল,লেখক,গীতিকার শেখ রানা ,কলকাতা থেকে তরুণ সানতুর শিল্পী কুনাল সাহা।

DSC_4078

অনুষ্ঠানের স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন- কবি আতাউর রহমান মিলাদ, ময়নূর রহমান বাবুল, গোলাম কবির,শাহ শামীম ,আবু মকসুদ,কাজল রশিদ, নুরুল হক,শাহ সোহেল,সাগর রহমান,মোহাম্মদ কিবরিয়া,জামিল সুলতান,সৈয়দ রুম্মান,মজিবুল হক মনি, মোহাম্মদ ইকবাল,পলিন মাঝি, মোহাম্মদ মুহিত, এম মোসাইদ  খান,হাসি খান, আনোয়ারুল ইসলাম অভি প্রমুখ।

DSC_4114

ছড়াপাঠ করেন  আবু তাহের,দিলু নাসের,রেজুয়ান মারুফ। সানতুর শিল্পী কুনাল সাহার মৌলিক গানের সাথে তার করা ফিউশন হলভর্তি দর্শকদের মুগ্ধ করে রাখে।

DSC_4044

অনুষ্ঠানে অতিথিরা সাংবাদিক ফারুক যোশী এবং কবি সাংবাদিক আনোয়ারুল ইসলাম অভির শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতির অনলাইন- পলল, এম মোসাইদ খান এর হাড়ের মিছিল এবং কদম আলী লন্ডন ব্রিজ এবং আরাফাত তানিম রাত্রির শেষ পৃষ্ঠা কবিতাগ্রন্থ’ এর মোড়ক করা হয়। উৎসবকে কেন্দ্র করে বিলেতে সাপ্তাহিক সুরমা এবং পত্রিকা উৎসব সংখ্যা প্রকাশ করে। এছাড়াও অন্যান্য সংবাদপত্র ও ইলেকট্রনিকস মিডিয়া গুরুত্ব দিয়ে সংবাদ পরিবেশন করেছে।# DSC_4130 উল্লেখ্য ১৯৯৮ সালে কিছু কবি সাহিত্যিক এর উদ্যোগে ইষ্ট লন্ডনে  জন্ম নেয় সংহতি সাহিত্য পরিষদ । জন্মলগ্ন থেকে সংহতি বাংলা ভাষা এবং বাঙালীর মৌলিক ও আদর্শিক বিষয়ে ধারাবাহিক কাজের মাধ্যমে একটি নিরেট সাহিত্য সংগঠন কাজ করে আসছে।

DSC_3960

বিলেত থেকে  প্রথম বাংলা  মাসিক সাহিত্যের কাগজ, মঞ্চনাটক, নাটক,কবিতা উৎসব, সাহিত্যের মৌলিক ধারার আড্ডা, কবিতা বিষয়ক কর্মশালা, বর্ণবাদ  বিরোধী ও বহু ভাষাভাষীদের নিয়ে ইকুয়ালিটি ও ডাইর্ভাসিটি বিষয়ক কর্মশালা, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস এবং বাঙালীর কৃষ্টি-ইতিহাস ও ঐতিহ্য বিষয়ক বিশেষ দিনগুলোতে  সংহতির মৌলিক কর্মকাণ্ড বিলেতে অগ্রগণ্য। DSC_3983 ২০০৮ সাল থেকে  সংহতি প্রতি বছর অভিবাসনে বসবাসরত বাংলা সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য সংহতি সম্মাননা পদক প্রদান করে আসছে। দুই হাজার পনের সাল থেকে সংহতি বাংলাদেশ সহ ইউরোপ,আমেরিকা, কানাডা, মধ্যপ্রাচ্য এবং কলকাতায় তার শাখার  আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করেছে। DSC_4620

Posted in Uncategorized | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

কবি, সাহিত্যিক ও কলামিস্ট আবদুল গাফফার চৌধুরী প্রদত্ত বক্তব্যকে নিয়ে বিভাজন সৃষ্টি না করার জন্য আহবান

সম্প্রতি বাংলাভাষার সময়ের কিংবদন্তী লেখক, কালজয়ী একুশের গানের রচয়িতা, রবণ্যে সাংবাদিক ও কলামিস্ট জনাব আবদুল গাফফার চৌধুরীর নি্উইর্কের একটি সভায় তাঁর প্রদত্ত বক্তব্যকে কেন্দ্র করে যে নানা বিতর্ক ও বিভাজনের সৃষ্টি হয়েছে তার পরিপ্রেক্ষিতে সংহতির পক্ষ থেকে আমাদের নিম্নরূপ বিবৃতি প্রকাশের উদ্যোগ।

সংহতির জন্মলগ্ন থেকে জনাব আবদুল গাফফার চৌধুরী সরাসরি এবং আত্মিকভাবে সম্পর্কিত, সংহতির একজন অভিভাবক হিসাবে তিনি  নানা দায়িত্বও পরামর্শ দিয়ে আসছেন। এমনকি বিলেতের বাংলাভাষার পত্রপত্রিকা, সাংবাদিকতা ও প্রগতিশীল লেখিয়েদের উত্তরণেরে পেছনে  রয়েছে তাঁর সমান অবদান। যে অবদানের ফলশ্রুতিতে বিলতের বাংলা পত্রপত্রিকা, সাহিত্যিক, সাহিত্য ও রাজনৈতিক সংগঠনগুলো গর্বের  সাথে তাঁকে স্মরণ রাখবে।

বিশেষ করে সংহতি আজ ২৫ বছর পূর্ণ করেছে এবং বিনম্র শ্রদ্ধার সাথে তাঁর বিগত দিনের অবদানকে স্বীকার করছে।  তাঁকেও যথাযথ সম্মান দেখাতে ২০০৮ সালে প্রদান করে সংহতি আজীবন সম্মাননা পদক এবং ২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে  ঢাকায় গণ-সম্বর্ধনার আয়োজন করে, যার সাক্ষী হয়ে থাকবে জনাব আবদুল গাফফার চৌধুরীকে নিয়ে রচিত ইতিহাসের একটি অংশ।

আমরা জানি তাঁর একটি আলোচনা ও বক্তব্যকে কেন্দ্র করে কিছু মানুষের নানা রকম মন্তব্য ও অশালীন ভাষায় সমালোচনার মাধ্যমে সামাজিক অবস্থানকে যে রকম ভাবে বিভাজিত করে তোলা হচ্ছে আমরা সে পরিস্থিতিকে নিরসনের মাধ্যমে মুক্ত বুদ্ধিদীপ্ত পরিচর্যার জন্য আহবান করছি, এবং বিজ্ঞ বর্ষীয়ান ব্যক্তি সম্পর্কে এ রকম আপত্তিজনক মন্তব্য থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানাচ্ছি ।

সংহতির পক্ষে বিবৃতিতে নিম্নলিখিত কবি সাহিত্যিকরা তাদের সম্মতি জানান:

কবি ফারুক আহমেদ রনি (প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, সংহতি), ছড়াকার ও নাট্যকার আবু তাহের (প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক, সংহতি), সেলিম উদ্দিন (প্রতিষ্ঠাতা সহ সভাপতি, সংহতি), কবি তুহিন চৌধুরী (প্রতিষ্ঠাতা সাংস্কৃতিক সম্পাদক, সংহতি), কবি ইকবাল হোসেন বুলবুল (সভাপতি, সংহতি), কবি ও ছড়াকার রেজুয়ান মারুফ (সহ সভাপতি, সংহতি),  শামসুল হক এহিয়া (সাধারণ সম্পাদক, সংহতি), কবি ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব শামসুল জাকি স্বপন (সহ সাধারণ সম্পাদক, সংহতি), কবি শামীম সাহান (প্রচার সম্পাদক, সংহতি), কবি আনোয়ারুল ইসলাম অভি (সাহিত্য সম্পাদক, সংহতি), হেলাল উদ্দিন (প্রাক্তন কোষাধ্যক্ষ, সংহতি), মুনিরা পারভিন (সাংস্কৃতিক সম্পাদক, সংহতি), কবি এম. মোসাইদ খান (সংহতি), শাহেদ চৌধুরী (দপ্তর সম্পাদক, সংহতি), আরাফাত তানিম (সংহতি), ফারুক মিয়া (সংহতি), নজরুল আলম (সহ সাধারণ সম্পাদক), শামসুল হক শাহআলম (সহ কোষাধ্যক্ষ, সংহতি), নাট্যশিল্পী ও সাংস্কৃতিককর্মী রুহুল আমিন, কবি সাইফ উদ্দিন আহমদ বাবর (সংহতি), এ কে এম আব্দুল্লাহ (সংহতি)উদয় শংকর দূজয় (সংহতি)ও আবির ইসলাম (সংহতি)।

তাছাড়াও সংহতির উক্ত বিবৃতিতে আরো যারা তাৎক্ষনিকভাবে সম্পৃক্ততা জানিয়েছেন; তাদের মধ্যে কবি মাশুক ইবনে আনিস (সম্পাদক আদি কাকতাড়ুয়া), কবি ও ছড়াকার দিলু নাসের (কবিতা পরিষদ, সভাপতি), কবি ময়নুর রহমান বাবুল, কথা সাহিত্যিক ও সাংবাদিক সাঈম চৌধুরী (নির্বাহী সম্পাদক, জনমত),  কবি ও গীতিকার আহমেদ হোসেন বাবলু, কবি ও গল্পকার সাগর রাহমান, মোহাম্মদ গোলাম কিবরিয়া (কমিউনিটি সম্পাদক, জনমত), আমিনা আলী (সাংস্কৃতিককর্মী, সহ সাধারণ সম্পাদক উদীচি), লুসি রহমান (শিল্পী ও সাংস্কৃতিককর্মী), গৌরী চৌধুরী (শিল্পী ও সাংস্কৃতিককর্মী), মিতা তাহের (শীল্পি ও সাংস্কৃতিককর্মী)।

Posted in সাম্প্রতিক, Home, Press release | Tagged | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

Shanghati Job Advertisement

Job Advertisement of Poetry in East End Bengali Migrant’s Life 1960-1980: Poetry the Inseparable Part of Bengali Life


If you are interested please download the application below and send by 20th July 2015:

Job Application Form – Shanghati JD&PS – Project Co-ordinator – Shanghati Shanghati and project info

Posted in Uncategorized | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

PRESS RELEASE

25th Anniversary and Literary Seminar


The Shanghai Literary Society is organizing a special 25th anniversary and literary seminar on 1st August 2015 at Curtain Theatre, 28 Commercial Street, London E1 6LS, United Kingdom. Since the organization’s inception in 1989 the society has been organizing regular arts and cultural events, including an annual poetry festival, which attracts more than 1000 participants and poets from around the world, including special guests invited from mainland UK, Bangladesh, West Bengal, USA, Canada and Europe.

Stephen WattsPassingClouds7Poet Stephen Watts

Anisul_Hoque_-_Dhaka_2015-05-30_1676
Poet, Novelist and Journalist Anisul Hoque

It has been confirmed by our distinguished guests and delegates of their attendance including renowned British poet Stephen Watts, poet writer, novelist and journalist Anisul Hoque (Associate Editor, Day Prothom Alo), poet and Journalist Mustafiz Shafi (Executive Editor, Daily Samakal), poet, writer and academician Shoaib Gibran, writer, lyricist & composer  Sheik Rana from Bangladesh, poet Zia Uddin USA and poet Abdul Hasib from Canada, it is also confirmed that popular singer and musician Badsha Bulbul (Bangladesh) and musician and santoor player Kunal Saha from Kolkata also featuring the event.

shafi-vaiPoet and Journalist Mustafiz Shafi

It just seems that Shanghati keeps growing and glowing with a remarkable vitality that demonstrates the creativity, respect, and understanding that the Shanghati has for the Bengali literature, arts and cultural field. It has broadly recognized that the Shanghati board and every member for their diligence, commitment, vision and support they have provided to Bengali literature throughout the world.

63988_589482961079400_1309572613_nPoet & Writer Soaib Gibran

The 25th year anniversary and literary festival will be an even more special in the light of the recent expansion of its activities in running an externally funded project.  The event will have colorful procession, seminar, poetry recitation, music and drama performances. It will be attended by the diverse communities of the UK and other parts of globe.

10898157_1004238939590620_4449997284078123894_n
Poet and Writer Abdul Hasib
14646_816320641750849_6497684844598527406_n
Poet Zia Uddin

We have been promised to expand our creativity and our rich culture and literature in the multicultural society around the globe, and now the time, we are faced with the challenges of realizing that promise, work that requires us all to continue speaking out and acting on our commitments to make substantive and lasting changes.

photoWriter,Lyricist & Musician Sheik Rana
badsha-bulbul.j1
Singer and Musician Badshah Bulbul1386157110604dw1Musician and Santoor Player Kunal Saha

The strength and success of the work that Shangahti and our members has been doing for the last 25 years gives us the ability and courage to continue doing that work into the future, and look forward to work together.


সংহতি রজত জয়ন্তী ২০১৫


সংহতি আজ ২৫ বছরের যুবা। আজ থেকে ২৫ বছর আগে তৃতীয়বাংলায় কিছু তরুণ কবি ও সাহিত্যকর্মিদের প্রচেষ্টায় সংহতি সাহিত্য পরিষদের জন্ম হয়। জন্মলগ্ন থেকে সংহতি তার আদর্শ এবং কর্ম তৎপরতার মাধ্যমে একটি নিরেট সাহিত্য সংগঠনে পরিণত হয়েছে। বাংলা সাহিত্যের সব ক’টি ক্ষেত্রেই সংহতি সমান অবদান রেখে আসছে। সংহতি শুরুতে যুক্তরাজ্য থেকে সর্বপ্রথম বাংলা মাসিক সাহিত্যের কাগজ প্রকাশনার মধ্যদিয়ে যাত্রা শুরু করে। তারপর ধাপে ধাপে বাংলা সাহিত্যের বিভিন্ন ক্ষেত্রে সংযোজন করছে ভিন্ন মাত্রা। ২০০৮ সাল থেকে বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের বাহিরে সর্বপ্রথম বাংলা কবিতা উৎসব ও বহির্বিশ্বের বাংলাভাষার কবি সাহিত্যিকদের মূল্যায়নের লক্ষ্যে সাহিত্য পুরষ্কারের উদ্যোগ গ্রহণ করে। সংহতি কবিতা উৎসবকে কেন্দ্র করে প্রতি বছর বিশ্বের বিভিন্ন জায়গা থেকে অংশগ্রহণ করছেন কবি ও সাহিত্যিকরা। সংহতির ২৫ বছর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে পহেলা আগস্ট ২০১৫, পূর্বলন্ডনের কার্টেন থিয়েটারে উদযাপিত হতে যাচ্ছে রজত জয়ন্তী ও সাহিত্য সম্মেলন। এতে বাংলাদেশ থেকে উপস্থিত থাকার চুড়ান্ত  সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন বিলেতের মুল্ধারার কবি স্টীফেন ওয়াটস্, এ সময়ের জনপ্রিয় কবি, লেখক ও কথা সাহিত্যিক আনিসুল হক, কবি ও সাংবাদিক মুস্তাফিজ শফি, কবি ও সাহিত্যিক ড. শোয়াইব জিবরান, লেখক, গীতিকার ও সুরকার শেখ রানা, বিশিষ্ঠ সংগীত শিল্পী বাদশা বুলবুল, ক্যানাডা থেকে কবি আব্দুল হাসিব, জিয়া উদ্দীন (আমেরিকা) ও কলকাতা থেকে আসছেন সানতুর শিল্পী কুনাল সাহা্। তাছাড়ও  যুক্তরাজ্য ও  ইউরোপের বিভিন্ন এলাকা থেকে অনেক কবি সাহিত্যিকরা অংশগ্রহণ করবেন। বিস্তারিত জানার জন্য যোগাযোগ করুন shanghati@yahoo.co.uk


POETRY THE INSEPERABLE PART OF BENGALI LIFE (1960-80)

Exploring poetry writing and community evolution in East London during 1960-80
A unique project by Shanghati Literary Society

 The project aims to help reveal the rich heritage of poetry in East London during 1960-80, primarily by Bengalis, through oral history and collecting community poems. This period represents a decade before and a decade after the creation of Bangladesh in 1971, which is partly designed to help understand the impacts of the tumultuous birth of a new country on community poetry.  The project will include poetry by non-Bengalis of the area, which will help bring out the totality of the world of poetry writing in East London, the changing local context and the place of Bengali poetry writing. Now a group of volunteer researchers from East London are setting out to uncover that story, backed by a £50,000 grant from the Heritage Lottery Fund (HLF).

Poetry writing and reading have been a very strong element of Bengali life for a long time. Not only professional or well-known poets participated in this art but many ordinary people in their spare time or during moments of inspiration wrote down verses on blank sheets of paper. Migrants who came to the UK from Bangladesh or Bengal part of East Pakistan before Bangladesh was created in 1971 resorted to writing and reading poetry in order to seek comfort, express and share thoughts and experiences, engage in cultural activities, explore romantic feelings, etc.

Many ordinary people sent their poems to Bengali newspapers and magazines to be published and some even spend money from their pockets to get their own books of short poetry printed, which they tried to sell through small shops, during community events or just give them out free of charge. There are literally hundreds of poets who produced works of different qualities and some of their works are probably in family archives somewhere in their homes and others may be found by going through old Bengali newspapers and community magazines and newsletters.

There is also a strong tradition of poetry within the mainstream communities of East London during the same period. For example, the Basement Writers Group spearheaded poetry activities in the area with regular performances and many publications.

From the 1960s onwards East London experienced major changes, caused by post war immigration, experiences of and fight against racism, decline of local industries, closure of docks and resistance by local people, rising unemployment, etc. The inclusion of poetry by non-Bengalis in the project will help develop an understanding of the shared and different worlds lived and experienced by the diverse communities of East London.

The project will recruit twelve volunteers and provide them with training on oral history, curatorial presentations and archival research. The volunteers will record oral history of forty community poets, collect 100 Bengali and English poems, and help produce a printed book and an illustrated exhibition, which will be showcased at the project end celebration at the Bancroft Local History Library and Archives.

Notes to Editors

 About the Heritage Lottery Fund

From the archaeology under our feet to the historic parks and buildings we love, from precious memories and collections to rare wildlife, we use National Lottery players’ money to help people across the UK explore, enjoy and protect the heritage they care about. www.hlf.org.uk.

About the Shanghati Literary Society

Shanghati Literary Society organises regular arts and cultural events, including an annual poetry festival in East London, which attracts more that 1,000 participants and poets from around the world, including special guests invited from Bangladesh and West Bengal in India.  Since 2012 Shanghati has been delivering a number of unique externally funded community cohesion projects called Vision for Tolerance, Combating Prejudice and Community Literature Festival, the latter involve training on poetry, drawing and short story writing and running a competition.

Posted in সাম্প্রতিক, Home (English), Press release | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

Poetic Narrations

11391283_10153120727513423_7380926367298971043_nTraining course designed to help you to learn how to write poetry or improve you poetry writing skills.

Wednesday 3, 10, 17 & 24 June (Lab 1a), 6.30-8.30pm at Idea Store Whitechapel

  • Would you like to learn how to write poetry?
  • Would you like to improve your poetry writing skills?

If the answer to any of the above two questions are yes then please book a place on the course

All welcome to participate in the competition and training. For further details or to book a place on the training courses please email shanghati@yahoo.co.uk or phone 07914119282. Emdad Rahman (MBE) is a writer, blogger and football poet. He is also a community volunteer, passionate about grassroots efforts which help bring positive changes in communities. He volunteers for local publications, is a writer for the Liverpool FC Fanzine Red and The Pavement Magazine for homeless people. He is also a published football poet with over 500 poems. This is a Shanghati Literary Society initiative Layout 1


Shanghati Literary Society and  its upcoming events


The Shanghai Literary Society is organizing a special 25th anniversary and literary festival on 1st August 2015.  Since the organisation’s inception in 1989 the society has been organising regular arts and cultural events, including an annual poetry festival, which attracts more that 1000 participants and poets from around the world, including special guests invited from Bangladesh, West Bengal, USA, Canada and Europe.
It just seems that Shanghati keeps growing and glowing with a remarkable vitality that demonstrates the creativity, respect, and understanding that the Shanghati has for the Bengali literature, arts and cultural field. It has broadly recognized that the Shanghati board and every member for their diligence, commitment, vision and support they have provided to Bengali literature throughout the world.
 Since 2012 Shanghati has been delivering a number of unique externally funded community cohesion projects called Vision for Tolerance, Combating Prejudice and Community Literature Festival including training, drawing, and short story writing and running a competition.
Recently, the organisation has been successful in securing funds from the Heritage Lottery Funds to deliver an amazing project called Poetry the Inseparable Parts of Bengali Life. The 25th year anniversary and literary festival will be an even more special in the light of the recent expansion of its activities in running an externally funded project.  The event will have colourful procession, seminar, poetry recitation, music and drama performances. It will be attended by the diverse communities of the UK and other parts of globe.We have been promised to expand our creativity and our rich culture and literature in the multicultural society around the globe, and now the time, we are faced with the challenges of realizing that promise, work that requires us all to continue speaking out and acting on our commitments to make substantive and lasting changes.The strength and success of the work that Shangahti and our members has been doing for the last 25 years gives us the ability and courage to continue doing that work into the future, and we look forward to work together

সংহতি সাহিত্য পরিষদের সাহিত্য আড্ডা
IMG-20150615-WA0143

লন্ডন, ১৬ জুন :
সংহতি সাহিত্য পরিষদের উদ্যোগে গত ১৫ই জুন সোমবার সংগঠনের নিয়মিত সাহিত্য আড্ডার অংশ হিসেবে ব্যতিক্রমর্ধী এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় । 

বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের কবিতা এবং গান নিয়ে সাজানো অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে কবিতা আবৃতি করেন বিশিষ্ট আবৃতিশিল্পী মুনিরা পারভীন এবং গান পরিবেশন করেন বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী মিতা তাহের এবং নাজমুন নাহের। এছাড়াও অনুষ্ঠানে সাহিত্য সংষ্কৃতি বিষয়ক বিভিন্ন আলোচনার পাশপাশি রবীন্দ্র নজরুল নিয়ে আলোচনার ফাঁকে ফাঁকে বিলেতের কবি ও ছড়াকার পাঠ করেন তাদের স্বরচিত কবিতা ও ছড়া । আলোচনা এবং কবিতাপাঠে অংশ নেন কবি হামিদ মহাম্মদ, গোলাম কবির, আহমেদ ময়েজ, নজরুল ইসলাম ,মজিবুল হক মনি ,ফারুক আহমেদ ,দিলু নাসের ,আবু তাহের ,আহমেদ হোসেন বাবলু ,সৈয়দা নাজমিন হক, আবু মকসুদ ,কাজল রশিদ, রেজুয়ান মারুফ, এম মোসাইদ খান ,সাইফ উদ্দিন বাবর, আরাফাত তানিম ,জামিল সুলতান ,শামসুল জাকী স্বপন, এ কে এম আব্দুল্লাহ ,সাগর রহমান, উদয় শংকর দূর্জয়, মোহাম্মদ মুহিদ প্রমূখ ।

সংহতির সাহিত্য সম্পাদক কবি আনোয়ারুল ইসলাম অভি’র পরিচালনায়, অনুষ্ঠানের উপস্থিত সবাইকে স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের পক্ষে কবি ইকবাল হোসেন বুলবুল ও কবি শামসুল হক এহিয়া ।

IMG-20150615-WA0140 IMG-20150615-WA0141 IMG-20150615-WA0139


Posted in Uncategorized | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

কবিতা উৎসব ২০১৪

  


বাংলা কবিতা উৎসব ২০১৪ উপলক্ষে বিলেতের কবিসাহিত্যিকদের সাথে সংহতি’র মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

 সংহতি সাহিত্য পরিষদ আয়োজিত বাংলা কবিতা উৎসব ২০১৪ উপলক্ষে বিলেতের কবি ,সাহিত্যিক, সাংবাদিক ,সংগঠক,সংস্কৃতিকর্মীদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়। গত ২৩ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার পূর্ব লন্ডনের মন্টিফিউরি সেন্টারে সংগঠনের সভাপতি কবি ইকবাল হোসেন বুলবুলের সভাপতিত্বে অনুষ্টানে বিলেতের উল্লেখযোগ্য কবি,সাহিত্যিক, সংস্কৃতকর্মী ,সংগঠক উপস্থিত থেকে কবিতা উৎসবকে সফল করতে তাদের নিজ নিজ মতামত ব্যক্ত করেন। সংহতির সাধারণ সম্পাদক কবি সামসুল হক এহিয়ার স্বাগত বক্তব্যে  অনুষ্টিতব্য কবিতা উৎসবের সম্ভাব্য কর্মকান্ডের বিবরণ দিয়ে উপস্থিত সবাইকে তাদের মুল্যবান মতামত প্রদানের আহবান জানান। সংহতির দীর্ঘ ২৬ বছরের নিরবিচ্ছিন্ন কর্মকান্ড নিয়ে আলোকপাত করেন সংগঠনের উপদেষ্টা নাট্যকার আবু তাহের ও  সাংবাদিক মোহাম্মদ আব্দুল মুনিম জাহেদী ক্যারল, সভাপতি ইকবাল হোসেন বুলবুল এবং ট্রেজারার  কবি তুহীন চৌধুরী। মতবিনিময় সভায়- কবিতা উৎসবকে প্রাণবন্ত করতে  উপস্থিত সকলে তাদের নিজ নিজ মতামত তুলে ধরেন। উল্লেখযোগ্য বিষয় গুলো হচ্ছে- স্বরচিত কবিতা পাঠ অংশে অনুষ্টানের  সার্বিক মান ও সময়কে বিবেচনায় রাখা, বিলেতের কবিদের কবিতা আবৃত্তি প্রসঙ্গ,বিলেতের বাংলা সাহিত্য ও সাহিত্য নির্ভর মৌলিক  সার্বিক কর্মকান্ড নিয়ে আলোচনা, বই মেলা, সংগঠকদের মৌলিক পরিবেশনা,আমন্ত্রিত অতিথিদের আলোচনা ও পরিবেশনা প্রসঙ্গ এবং সংহতির স্মারক প্রকাশনা ইত্যাদি। আলোচনায় অংশগ্রহন করেন- লেখক সাংবাদিক ইসহাক কাজল,কবি সাংবাদিক আহমদ ময়েজ,কবি মজিবুল হক মনি,সাংবাদিক আব্দুল কাদির মুরাদ,কবি আবু মকসুদ, কবি সাইফুদ্দিন আহমদ বাবর,কবি নজরুল ইসলাম,কবি গোলাম কিবরিয়া,কবি সৈয়দ রুম্মান,কবি এম মোশাহিদ খান, কবি সাগর রহমান,কবি উদয় শংকর দুর্জয়,কবি আরাফাত তানিম, গীতিকার আহমেদ হোসেন বাবলু,কবি জামিল সুলতান,উপস্থাপক সামসুল জাকি স্বপন, কবি এ কে এম আব্দুল্লাহ, কবি শাহ আলম,সাংস্কৃতিক কর্মী সৈয়দা নাজমিন,সুফিয়া জামিন নুরুজ, জাকির হোসেন, কবি মোহাম্মদ মুহীত,লেখক আশিষ মিত্রপ্রমুখ।

প্রানবন্ত অনুষ্টানটি সঞ্চালনায় ছিলেন সংগঠনের সাহিত্য সম্পাদক কবি আনোয়ারুল ইসলাম অভি।  উল্লেখ্য সংহতি সাহিত্য পরিষদ  ২০০৮ সাল থেকে ধারাবাহিক ভাবে বিলেতে কবিতা উৎসব করে আসছে। আগামী ১৯ অক্টোবর রবিবার দিনব্যাপী  বাংলা কবিতা উৎসব ২০১৪ পূর্ব লন্ডনের ব্রার্ডি আর্টস সেন্টারে নান্দনিক ও বিশাল কলোবরে অনুষ্টিত হবে। দুই পর্বের অনুষ্টানের শুভ উদ্বোধন এবং উৎসব এর প্রথম পর্ব শুরু হবে আলতাব আলী পার্ক থেকে বর্ণাঢ্য র‍্যালীর মাধ্যমে। অনুষ্টানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসাবে থাকবেন- বাংলা সাহিত্যের অন্যতম কবি হেলাল হাফিজ এবং বিশিষ্ট আবৃত্তিকার শিমুল মুস্তাফা। এছাড়ারও আশির দশকের কবি ফজলুল হক ও ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশের বাংলাভাষি কবি সাহিত্যিক ও কবিতাপ্রেমীরা উপস্থিত থাকবেন বলে সংহতির পক্ষ থেকে জোর আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়েছে। বরাবরের মতো সংহতি এবারও সংহতি কবি পদক,সাহিত্য পদক, বিশেষ সম্মাননা পদক প্রদান করবে।অনুষ্টান সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য জানতে সংগঠনের সাহিত্য সম্পাদক কবি আনোয়ারুল ইসলাম অভির সাথে ০৭৯০৪০৭১০৯১ নাম্বারে ও shanghati@yahoo.co.uk যোগাযোগ করতে  সংগঠনের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে।

__________________________________________________________________

ধ্যানজ্ঞ প্রার্থনাসভা

মিলটন রহমান

কবিতার মত মৌল শিল্প নিয়ে কাজ করবার জন্য একটি নন্দনতাত্বিক ভূমির দরকার হয়। যেখানে প্রাকৃতিক সুরম্য সাঁকো তৈরী থাকবে । থাকবে ফুল ও পাখির পরাগায়ন রহস্যের মত মোহবিস্তারি ধ্যান। সেখানে গ্রীসের পৌরাণিক নারী থাকাও বাঞ্চনীয়। পোক্ত আসন থাকতে পারে ফ্রয়েডীয় রতিবিশ্ব কিংবা এলিয়টীয় রোমান্টিকতার। এসবের মধ্যে ঠিক ফাঁক গলে বসে থাকা শুন্যতা, হাঁহাঁকার কিংবা নি:সঙ্গতাও থাকা চাই। কেননা ধ্যানের অধীক আলো-অন্ধকার আঁকড়ে না থাকলে কবিতা পাতাবাহার হয় না। বিলেতে বাংলা কবিতা সাহিত্যের এমন একটি ভ’মি আছে কি নেই সেই প্রশ্ন অবান্তর। এইটুকু বলা যায় যারা এখানে কবিতাকর্ম করেন প্রত্যেকের একটি স্বর্ণরেখা আছে। ওই রেখাই কবিকে পথ দেখায়। মাটি ছেড়ে যারা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বসে বাংলাসাহিত্য চর্চা করছেন তারা জানেন বিলেতে একটি নন্দনভূমি আছে। বাংলা থেকে বিচ্ছিন্ন একটি ভ’মিতে থাকলেও তারা মূলধারার সাহিত্যকর্ম থেকে বিচ্ছিন্ন নয়। ইদানিংকালে অনেকেই দেশে-বিলেতে-দেশে বসেই সাহিত্যকর্ম করছেন। সম্ভবত মূলের সাথে অবিচ্ছেধ্য সম্পর্কের কারণেই এখানে দেশের মতই ব্যস্ত সময় কাটে কবি-সাহিত্যিকদের। প্রায় বছরজুড়ে কবিতা কিংবা সাহিত্য নির্ভর আয়োজনে আমরা অভ্যস্ত হয়ে উঠেছি। আমি বিলেতে থিতু হয়েছি ২০০৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর রাতে। যেদিন ইরাকের প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম হোসেনকে ফাঁসিতে ঝুলানো হলো। সময়টা বেশ কদর্যই ছিলো। তবে আমার পরবর্তী সময় তেমন ঘোলাটে হয়নি। সম্ভবত ২০০৭ কি ২০০৮ সালেই প্রথম আমি সংহতি সাহিত্য পরিষদের কবিতা উৎসবে যোগ দেয়ার সুযোগ পাই। ক্যুইনমেরি কলেজে সেবার কবিতা পাঠ করেছিলাম। সংহতির যাত্রার মাঝামাঝি সময়ে আমি সামান্য সহযাত্রী হতে পেরে প্রীত হয়েছিলাম। কারণ সেদিন সংহতির আয়োজন দেখে আমি ভুলে গিয়েছিলাম দেশে ফেলে আসা সব আয়োজনের কথা। কবিতা নিয়ে দেশের বাইরে পূর্ণঙ্গ অনুষ্ঠান আয়োজন, মাটিছাড়া আমাকে নতুন প্রনোদনায় উজ্জিবিত করেছিলো। কবি ফারুক আহমদ রনি, নাট্যকার আবু তাহের, কবি ইকবাল হোসেন বুলবুলসহ অনেকের সাথে আমার পরিচয় সংহতি সাহিত্য পরিষদের সুবাধে। দেখেছি একদল উদ্দমী কবিতাকর্মী নিরন্তর কাজ করেছেন প্রতিবছর কবিতা উৎসব আয়োজনে। কবিতা উৎসবে যোগ দিতে একে একে এসেছেন কবি আসাদ চৌধুরী, কবি বেলাল আহমেদ, কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী, কবি মহাদেব সাহা। এবার আসছেন কবি নির্মলেন্দু গুন, কবি মাসুদ খান, কবি মারুফ রায়হান, তরুন কবি ওবায়েদ আকাশ। আরো কবিরা এ উৎসবে যোগ দেবেন বলে শুনতে পেয়েছি।সংহতি প্রতি বছর কবিতা উৎসবের আয়োজন করছে আর এ উৎসবের উত্তরণ ঘটছে। এ উৎসব এখন মর্যাদার একটি বিস্তৃর্ণ মাঠের অধিকারী। যেখানে শোভা পাচ্ছে সব প্রিয় কবিদের নাম। যাদের সংহতি সাহিত্য পদক দিয়ে সম্মাণিত করেছে। সংহতি কবিতা উৎসব এখন বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে একটি সুবর্ণ পাতার নাম। বঙ্গীয় সাহিত্য সম্মেলন থেকে শুরু করে আজ অবধি কোন সাহিত্য সম্মেলন বা আন্দোলনের নাম নিতে গেলে সংহতি অবধারিতভাবে পর্যায়ক্রমে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে। দেশের বাইরে সম্ভবত এটিই এককভাবে কবিতা নিয়ে আয়োজিত বড় উৎসব। পত্র-পত্রিকায় প্রায় বছরজুড়ে আলোচনা থেকে বুঝা যায় এ উৎসবের বিস্তৃতি বিশ্বব্যাপি বিস্তৃত হয়েছে। কানাডা থেকে কবি মাসুদ খান আসছেন। এছাড়া অন্যান্য দেশ থেকেও আমাদের কবিরা আসবেন শুনেছি। অন্য দেশে অবস্থানরত কবিদের উৎসবমুখী করা সম্ভব হয়েছে এর গ্রহণযোগ্যতা ও প্রাপ্তবয়স্কতার কারণে। তাই বলতে এবং ভাবতে ভালো লাগে সংহতি আয়োজিত কবিতা উৎসব একদিন আরো বড় হবে। বাংলা কবিতার বিশ্ব প্রতিনিধত্ব করবে।সংগঠন-আড্ডা-কবিতা। এভাবে একটি যুথবদ্ধ খামার থেকে সৃষ্টি ও এর রসদ তৈরী হয়। বিলেতে সংহতি এ প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে গেছে এবং যাচ্ছে। ফলে এখানে তৈরী হয়েছে কিছু ধ্যানি মানুষ। যারা কেবল বাণী প্রার্থণা করেন। তৈরী করেন এক একটি সুরম্য উদ্যান। এটা এক ধরণের উম্মাদনা। যা না হলে বাক্য ও চিন্তারা অনিশ্চয়তার পাকে পড়ে। এবার উৎসবে এমনি তিন ধ্যানি আসছেন। ‘আমার কন্ঠস্বর‘ পাঠ করলে বুঝতে অসুবিধা হয় না কবি নির্মলেন্দু গুন কেমন ধ্যানি ছিলেন এবং কিভাবে কবি হয়ে উঠেছেন। গুন দা‘কে মনে হলে কবি আবুল হাসানের কথাও মনে পড়ে। আত্মার দুই বন্ধু ঢাকার রাস্তায় কিভাবে প্রেম ও আগ্নুৎপাতের মধ্য দিয়ে বেড়ে উঠেছেন। কবি আবুল হাসান ঝিনুক কে নিরবে সয়ে মুক্তা ফলানোর কথা বলে চলে গেলেও গুন দা মুক্তা ফলাচ্ছেন এখনো। একইভাবে সংহতিও মুক্তার অধীকারী এখন। কবি মারুফ রায়হান এবং আমি হাতে ও গলায় ঝিনুকের মালা পড়ে কক্সবাজার সৈকতে জল ও জোৎ¯œার সাথে মিশে গিয়েছিলাম। তখন দেখেছিলাম কবির উন্মাদনা। যা না হলে কবি হয়ে ওঠা অসম্ভব। তরুণ কবি ওবায়েদ আকাশ ধ্যানের চূঁড়ায় থাকেন বলে ‘শালুক‘ এর মত একটি ভারী ছোট কাগজ সম্পাদনা করেন। এবার কবিতা উৎসবে এঁদের উপস্থিতি কবিতা উৎসবকে অনন্যতায় স্থাপতি করবে বলে মনে করি।


 লন্ডনে বাংলা কবিতা উৎসব : শীতের আকাশে তবু কবিতার তুলো ওড়ে


 ওবায়েদ আকাশ

ইস্ট লন্ডনের শহীদ আলতাফ আলী পার্কে সকাল ৯টা থেকে প্রতিদিনের পরিচিত দৃশ্যগুলো যেন নিজেকে বদলে ফেলেছে। স্থানীয় গ্রীষ্মের শেষদিকে কিছুটা শীতের তীব্রতায় প্রাত্যহিক দৃশ্যগুলো যেন চুপটি মেরে আছে আশেপাশের অন্য কোথাও। এক নতুন দৃশ্যের উচ্ছ্বাসে দৃষ্টি নিবদ্ধ করে ছুটির দিনের উৎসুক লন্ডনবাসী যে যার মতো দাঁড়িয়ে পড়েছে আলতাফ আলী পার্কের নতুন দৃশ্যশোভার চারিদিকে। এ দৃশ্য আজ কবিতাপ্রেমীদের কোলাহলে। একে একে কবিতার নামে নানা সস্নোগান অঙ্কিত ব্যানার-ফেস্টুন হাতে ছুটে আসছে কবিতাপাগল অগণিত মুখ। শিশু থেকে বৃদ্ধ কে না ভালোবাসে কবিতা! প্রত্যেকের দৃষ্টি ফুঁড়ে যেন বেরিয়ে আসছে নতুন নতুন কবিতার সব ধারালো পঙ্ক্তি। সব কিছু ছাপিয়ে এখান থেকেই কবিতার শোভাযাত্রা শুরু করবে ‘বাংলা কবিতা উৎসব ২০১২’। এই র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করতে প্রাত্যহিক সীমাহীন ব্যস্ততাকে উপেক্ষা করে ‘সংহতি সাহিত্য পরিষদ’-এর সদস্যদের আগ্রহ চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছিল_ দীর্ঘ একবছর বিরতির পর আজ আবার কবিতা উৎসব। দৃষ্টি আকর্ষণীয় তাদের নানা আয়োজন। অবাক বিস্ময়ে তাকানোর মতো আমন্ত্রিত অতিথিদের প্রতি ‘সংহতি’র আচরণ ও অতিথিদের অংশগ্রহণ। এর সঙ্গে অংশ নিয়েছেন স্থানীয় ও বাংলা সংবাদপত্র-টেলিভিশনের অগণিত মিডিয়াকর্মী ও অন্যান্য সাংস্কৃতিক সংগঠনের সদস্যবৃন্দ। কবিতা পড়ার যে পাঠক নেই, কবিতা শোনার যে শ্রোতা নেই_ এই দৃশ্য যেন সেই ঘুণে ধরা ধারণাকে উপহাস করে চলেছে।
সকাল ১০টায় শুরু হলো দিনব্যাপী কবিতা উৎসবের উদ্বোধনী আয়োজন সকালবেলার র‌্যালি। গন্তব্য উৎসবস্থল ব্রাডি আর্ট সেন্টার। র‌্যালিতে অংশ নিয়েছেন সংহতি সাহিত্য পরিষদের অগণিত সদস্যসহ তাদের ও আমাদের সংস্কৃতিকর্মীদের অভিভাবক কবি ও বিশিষ্ট লেখক-কলামিস্ট আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী। বর্তমান বৃটেনের অন্যতম শক্তিমান ও জনপ্রিয় কবি স্টিফেন ওয়াটস, টাওয়ার হ্যামলেটের মেয়র, বাংলাদেশ দূতাবাসের হাইকমিশনার ছাড়াও আরো স্থানীয় গণ্যমান্য নারী-পুরুষ। আর এসময়ের বাংলা ভাষার শক্তিমান ও জনপ্রিয় কবি নির্মলেন্দু গুণসহ বাংলাদেশ থেকে আমন্ত্রিত অতিথি হয়ে যাওয়া আমরা কয়েকজন_ কবি মারুফ রায়হান, আমি ও কানাডা প্রবাসী কবি মাসুদ খানের অংশগ্রহণে এ র‌্যালি যেন আরো বেশি বেগবান হয়ে ছুটে চলে গন্তব্যের দিকে। র‌্যালিতে অংশ নিয়েছিলেন আমন্ত্রিত অতিথি জার্মান প্রবাসী কবি নাজমুন নেসা পিয়ারী। প্যারিস এবং ইতালি থেকেও এসেছিলেন অনেক কবিতাপ্রেমী।
ইস্ট লন্ডনের ব্রাডি আর্ট সেন্টার আজ কবিতার জন্য নিবেদন করেছে নিজেকে। যেন সে নিজেকে বারবার বুঝিয়ে দিচ্ছে_ আজ সারাদিন কবিতার দিন। কবিদের বরণ করার জন্যই সে নিজেকে রাঙিয়ে নিয়েছে রঙিন সাজে। একদিকে মূল মঞ্চ, একদিনে কবিদের বই বিক্রির মেলা আর একদিকে কবি ও দর্শনার্থীদের জন্য আপ্যায়নের সু ব্যবস্থায় ঘরটির প্রতিটি দৃশ্যই যেন কবিতাময় হয়ে উঠেছে।
অনুষ্ঠান শুরু হলো স্থানীয় সময় সকাল এগারোটায়। ‘তুমি সুন্দর তুমি সত্যের, তুমি সাম্যের / কবিতা তুমি আর এক নাম জীবনের’ কবি ইকবাল হোসেন বুলবুলের কথায় এই সমবেত উদ্বোধনী সঙ্গীত দিয়ে শুরু করা হয় দিনব্যাপী বাংলা কবিতা উৎসবের। তারপর আয়োজক ও অতিথিদের সংক্ষিপ্ত ভাষণ শেষে কবিতা চলচ্চিত্র নাচে গানে জমে ওঠে এই কবিতার দিন। সংগঠনের বর্তমান সভাপতি কবি ইকবাল হোসেন বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক কবি শামসুল হক এহিয়া, ট্রেজারার হেলাল উদ্দিন এবং প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কবি ফারুক আহমেদ রনি ও প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের সংহতির লক্ষ্য-উদ্দেশ্য ও আগামী দিনের কবিতা উৎসবকে ঘিরে তাদের স্বপ্নের কথা শোনান। সংহতির অন্যতম স্বজন কবি শামীম আজাদ উৎসব ও সংগঠনের নানা দিক নিয়ে নিজের ভাললাগার কথা জানান।
অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ইংল্যান্ডের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে এসেছিলেন অগণিত কবি ও শুভানুধ্যায়ীগণ। বার্মিংহাম থেকে কবি মুজিব ইরম, কবি দেলোয়ার হোসেন মঞ্জুর মতো বিভিন্ন সিটি থেকে দলে দলে কবিতাপ্রেমীরা দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে থাকেন। কয়েকটি পর্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সমবেতদের অংশগ্রহণে দর্শক পর্বে নেমে আসে পিনপতন নীরবতা। সকাল ১১টা থেকে রাত ৯টা অবধি দীর্ঘ ১০ ঘণ্টা কোনো কবিতার প্রোগ্রামে দর্শক ধরে রাখার কাজটি মোটেই সহজ কোনো ব্যাপার নয়। এই দিনে যে কাজটি অনায়াসেই করতে পেরেছে ‘সংহতি’। দর্শক সারিতে সারাদিন এক মুহূর্তের জন্যও কোনো তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না। অগণিত দর্শককে দেখেছি অডিটোরিয়ামের বাইরে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে কবিতা শুনতে। ব্রিটিশ জনপ্রিয় কবি স্টিফেন ওয়াটস বাংলাদেশের অধিকার বঞ্চিত নারীদের নিয়ে লেখা কবিতা পাঠ করে অনুষ্ঠানে এক অন্যরকম আবহ তৈরি করেন। বাংলাদেশ, কানাডা, জার্মানি, প্যারিস ও ইতালি থেকে আমন্ত্রিত অতিথি কবি ও লন্ডন প্রবাসী বাঙালি কবিদের নানা স্বাদের কবিতাপাঠ, ভাষণ-সম্ভাষণে দিনমান যেন এক অনন্য কবিতাময় হয়ে উঠেছিল তৃতীয় বাংলা তথা ইস্ট লন্ডনের ব্রাডি আর্ট সেন্টার। এছাড়াও ছিল নির্বাচিত কবিদের কবিতা থেকে আবৃত্তি। কবিতা আবৃত্তি করে শোনান রেজোয়ান মারুফ, মুনিরা পারভীন ও সালাহউদ্দীন শাহীন। অন্যদের মধ্যে আরো যারা কবিতা পাঠ করেন তারা হলেন_ কাদের মাহমুদ, শামীম আজাদ, মাশুক ইবনে আনিস, মুজিব ইরম, দেলোয়ার হোসেন মঞ্জু, মিলটন রহমান, মঞ্জুলিকা জামালী, অলি রহমান, কাজল রশীদ, নিতুপূর্ণা, শামীম শাহান, ওয়ালী মাহমুদ, শাহনাজ সুলতানা, খাতুনে জান্নাত, আনোয়ারুল ইসলাম অভি, শামসুল হক, আতাউর রহমান মিলাদ, মাজেদ বিশ্বাস, আহমদ ময়েজ, তুহিন চৌধুরী, মতিউর রহমান সাগর প্রমুখ।
এবারের কবিতা উৎসবে সংহতি মরণোত্তর পদকে সম্মানিত করা হয় কবি ও শিশুতোষ লেখক ডা. কুদরত উল ইসলামকে। বাংলা সাহিত্যে সার্বিক অবদানের জন্য কবি, কথাশিল্পী ও নাট্যকার ডা. মাসুদ আহমেদকে প্রদান করা হয় আজীবন সম্মাননা পদক। বাংলা কবিতায় অবদানের জন্য কবি দেলোয়ার হোসেন মঞ্জু ও বিলেতে বাংলা সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য কবি ও ছাড়াকার দিলু নাসেরকে সংহতি সাহিত্য পদকে সম্মানিত করা হয়। এছাড়া আমন্ত্রিত কবিদেরকে গুণীজন ও বিশেষ সম্মাননা পদকে ভূষিত করা হয়। কবি আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী ও কবি নির্মলেন্দু গুণ প্রত্যেকের হাতে সনদ ও ক্রেস্ট তুলে দেন।
সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে এবারের কবিতা উৎসবটি উৎসর্গ করা হয়েছিল সদ্য প্রয়াত জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদকে। আবু তাহেরের নির্মাণে হুমায়ূন আহমেদের ওপর একটি সংক্ষিপ্ত ডকু সিনেমাও প্রদর্শন করা হয়।
আয়োজক সংগঠন ‘সংহতি সাহিত্য পরিষদ’ দীর্ঘ ২৩ বছর ধরে তাদের নানামাত্রিক সাংস্কৃতিক কর্মকা- পরিচালনা করলেও এরকম নিরেট কবিতা উৎসবের আয়োজন করছে গত ৫ বছর ধরে। এ উৎসবে ইতোপূর্বে যোগ দিয়েছেন বাংলাদেশের স্বনামখ্যাত কবি বেলাল চৌধুরী, রফিক আজাদ, মহাদেব সাহা, আসাদ চৌধুরী, হাবীবুল্লাহ সিরাজী, মুস্তাফিজ শফিসহ আরো অনেকে। এছাড়া পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রবাসী বাঙালি কবিরা প্রতিবছরই এ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তৃতীয় বাংলার এই কবিতা উৎসবকে রাঙিয়ে যাচ্ছেন।
সংহতি শুধু উৎসব অনুষ্ঠানের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখেনি তাদের কর্মকা-। কবিতা ও সাহিত্যকেন্দ্রিক কিছু প্রকাশনা ও জনকল্যাণমুখী কিছু কর্মকা-ও তারা পরিচালনা করে আসছে।
প্রতিবছরই তারা আমন্ত্রিত অতিথিদের যাতায়াত, আবাসন, আপ্যায়ন ব্যয় থেকে শুরু করে তাদেরকে ইংল্যান্ডের দর্শনীয় স্থানগুলো সাধ্যানুযায়ী পরিদর্শন করিয়ে থাকে। এবারও তার কোনো ব্যতিক্রম ঘটেনি। ২৮ আগস্ট ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে রাত ৯ টায় যাত্রা শুরু করে আমরা লন্ডনের হিথ্রো বিমান বন্দরে পেঁৗছাই ২৯ আগস্ট ভোর সোয়া ছয়টায়। হিথ্রোতে নেমেই সংগঠনের সদস্যদের কুশলী ও দক্ষ পরিচালনা মর্মে মর্মে উপলব্ধি করেছি। বিমানবন্দর থেকেই তারা আমাদের দেখভালের যাবতীয় দায়িত্ব বুঝে নেন। ট্রেজারার হেলাল উদ্দিনের তত্ত্ববধানে আমাদের আবাসনের ব্যবস্থা করেন ৬৫, পোর্টট্রি স্ট্রিট, পপলারের এক চমৎকার ফ্ল্যাটে। কবি নির্মলেন্দু গুণ ও আমার জন্য একটি পরিপাটি কক্ষ এবং কবি মাসুদ খান ও মারুফ রায়হানের জন্য আর এক মনোরম কক্ষে শুরু হয় কবিতার জন্য আমাদের লন্ডনে বসবাস। ফ্ল্যাটে ওঠার পর থেকেই সংহতিকেন্দ্রিক অসংখ্য কবি ও কবিতাপ্রেমী আমাদেরকে উদ্দেশ করে চলে আসেন আমাদের ফ্ল্যাটে, জমিয়ে তোলেন কবিতার আড্ডা। শাহেদ চৌধুরী, তুহিন চৌধুরী দম্পতির আপ্যায়নের ধরনে সত্যিই মনটা বিগলিত হয়ে যায়। কবিতা পাঠ করেন কখনো কবি নির্মলেন্দু গুণ, কখনো মাসুদ খান, কখনো মারুফ রায়হান, কখনো আমি_ আর মুজিব, বুলবুলসহ ওখানকার কবিরা তো আছেনই। এই করতে করতে খুব নিকটে এসে যায় ২ সেপ্টেম্বর সেই কাঙ্ক্ষিত দিন, সারাদিন কবিতার দিন। লন্ডনের বাংলা কবিতা উৎসব ২০১২।
তবে এই কবিতা উৎসবের বাইরে শুধুই কি ফ্ল্যাটে বসে দিনগণনা? কখনো বুলবুল, কখনো এহিয়া, কখনো হেলাল, কখনো তাহের, কখনো সেলিম, কখনো শাহেদ, কখনো শাহান আমাদেরকে তুলে নিয়ে গেছে বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান পরিদর্শনে। কবি নির্মলেন্দু গুণের দীর্ঘদিনের ইচ্ছা ও আগ্রহে উৎসবের পরদিনই রেজোয়ান মারুফের নেতৃত্বে কবি শাহ আলমের গাড়িতে আমরা দেখে এলাম ক্যানসাল গ্রীনের এক সিমেট্রিতে রবীন্দ্রনাথের পিতামহ প্রিন্স দ্বারকানাথ ঠাকুরের সমাধি। ৩১ আগস্ট সেলিমউদ্দিন ও তুহিন চৌধুরী আমাদের নিয়ে গেলেন সেই স্বপ্নের টেমস্ নদীর পারে। টেমসের জল এই প্রথম দেখতে পেরে আবেগে ভিজে এল চোখ। দেখলাম টাওয়ার ব্রিজ, লন্ডন টাওয়ারসহ টেমসের চারপাশের নানান স্থপনা। আর ফাঁকে ফাঁকে চলল স্থানীয় টিভি ও সংবাদপত্রগুলোতে আড্ডা ও কবিতাপাঠ।
আবু তাহের আমাদের নিয়ে গেলেন কেন্টের এক ফলের বাগানে। যেখানে নিয়ম করাই আছে_ বিনামূল্যে ইচ্ছা মতো বাগানের ফল খেতে পারার। অপার উৎসাহে মেমে পড়লাম ফ্রুট পিকিংয়ের কাজে। ঢুকেই চোখে পড়ল পেয়ার গাছে ঝুলে আছে থোকা থোকা অচেনা পেয়ার। ছিঁড়ে খেতেই বুঝতে পারলাম কী সুস্বাদু এই ফল। গাছ থেকে ছিঁড়ে খেলাম, স্ট্রবেরি, রাজবেরি, আপেল, প্লাম্পের মতো নানা জাতের সুমিষ্ট ফল। তাই দুপুরে আর ওই দিনের লাঞ্চ করার উপায় ছিল না।
২ তারিখ উসবের পর থেকেই শুরু হলো আমাদের অন্য আরেক জীবন। কয়েক দিন ঘুরে ঘুরে বন্ধনহীন দেখে নিলাম লন্ডনের কখনো মেঘলা কখনো উজ্জ্বল আর রাতের আলো ঝলমলে দৃশ্যকে। ফাঁকে ফাঁকে চলতে থাকলো বিভিন্ন বাড়িতে নিমন্ত্রণ আর কবিতা পাঠের আড্ডা। ৯ সেপ্টেম্বর আমরা সবাই স্টার্টফোর্ট অন এভন, শেক্সপিয়ারের বাড়িতে যেন শেক্সপিয়ারের নিমন্ত্রণে বেড়াতে এলাম। কী মনোরম এক বাড়িতে বাস করতেন শেক্সপিয়ার! আর তার চারপাশের দৃশ্য আরো কী যে অভাবনীয় সুন্দর! পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া এভন নদীটি যেন এই বিখ্যাত কবি-নাট্যকারের মনের মতো করেই সৃষ্টিকর্তা এখানে শায়িত রেখেছেন।
বার্মিংহামের বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানগুলো ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে দেখান কবি মুজিব ইরম, দেলোয়ার হোসেন মঞ্জু, চলচ্চিত্র নির্মাতা মকবুল চৌধুরী ও নাট্যকর্মী তারেক চৌধুরী। সুইনডন, অক্সফোর্ড, স্টোনহেঞ্জ, সেইলসবারি, বর্নমথে
ভ্রমণের অভিজ্ঞতা কোনো দিন মন থেকে মুছে যাবার নয়। এসব অভাবনীয় সুন্দর দর্শনীয় জায়গাগুলো আমাদেরকে ঘুরিয়ে দেখান কথাশিল্পী কামাল রাহমান, ডা. রাফি আহমেদ ও বিজু। ক্যামব্রিজ, ব্রিটিশ লাইব্রেরি, ব্রিটিশ মিউজিয়াম, মিলেনিয়াম ডোম, বাকিংহাম প্যালেসের মতো আরো অসংখ্য দর্শনীয় স্থান ঘুরিয়ে দেখান ইকবাল বুলবুল, এহিয়া, নিতু, কাজল, ওয়ালীসহ একঝাঁক তরুণ কবিতাকর্মী।
একটি বিষয় খুব স্পষ্ট মর্মে গেঁথে গেল যে, এখন আর ইংল্যান্ডের প্রবাসী বাঙালিরা তাদের নিজেদেরকে ‘ডায়াস্পরা’ বা ‘অনাবাসী’ বলতে মোটেই রাজি নন। এ ধারণাকে তারা তাদের পূর্বপুরুষের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখতে চান। পূর্বপুরুষেরা আজকের এই ভূমিটি তৈরি করে দিয়েছেন। তাদের বৃটিশবাঙালি সন্তানেরা নিজেদেরকে কখনো ডায়াস্পরা বলে মেনে নেবে না। এখন আর তারা বিক্ষিপ্ত নয়। এখন আর কোনোভাবেই তাদের আলাদা ভাববার অবকাশ নেই। তারা মনে করেন তাদের ভাষা সাহিত্য এখন বৃটিশ মূল ধারারই অংশ। তারা এখন বৃটেনে তাদের অবস্থানকে ‘তৃতীয় বাংলা’ বলে স্বীকার করছে। এই তৃতীয় বাংলাকে তারা বাংলা কবিতার চারণভূমি বলতেও দ্বিধা করছে না। সমগ্র বৃটেনে দীর্ঘকালের বাংলা কবিতা চর্চা এবং দীর্ঘদিনের সাংস্কৃতিক কর্মকা- তাদের এ দাবিকে অনেক বেশি যুক্তিপূর্ণ করে তুলেছে।
জীবিকা নির্বাহের সীমাহীন ব্যস্ততা, প্রতিকূল আবহাওয়া ও নাগরিক নির্মমতাকে উপেক্ষা করে ইংল্যান্ডের আকাশে বাতাসে যে কবিতার তুলো উড়তে দেখেছি, তাতে একজন বাংলা কবিতাকর্মী হিসেবে নিজেকে অনেক বেশি ভাগ্যবান মনে করেছি। বাংলা কবিতা উৎসবকে ঘিরে দীর্ঘ ২৪ দিনের বিলেত ভ্রমণ শেষে উইলিয়াম শেক্সপিয়ার, ম্যাথু আর্নল্ড, ওয়ার্ডসওয়ার্থ, জন মিল্টন, স্যামুয়েল কোলরিজ, জন ডান, হ্যারল্ড পিন্টার প্রমুখ মহান কবিদের দেশ থেকে আরো বেশি আশাবাদী হয়ে দেশে ফিরেছি। কবিতার জয় অনিবার্য।

Posted in সাম্প্রতিক | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

Recruiting Volunteers

Shanghati Oral History project looking at poets from East London 1960 – 1980

The project primarily focuses on the poets from the Bengali community but will also be collecting memories of poets from other backgrounds.

‘Poetry – the inseparable part of Bengali life 1960 to 1980’ is an oral history project by Shanghati Literary Society which was established in 1989 to enhance and promote Bengali literature amongst the Bengali community in London.

The oral history project aims to help reveal the rich heritage of poetry in East London between 1960 – 1980, with a particular focus on the East End Bengali community.  The period represents a decade before and a decade after the creation of Bangladesh in 1971, and this period was partly selected to help understand the impacts of the tumultuous birth of a new country on community poetry.

The project also aims to collect the memories of non-Bengali poets from East London. East London experienced major changes and disruption during that period, caused by various social and political factors such as post was immigration, visible rise in racist attacks, decline of local industries, closure of docks, and rising unemployment. The inclusion of poetry by non-Bengali poets will help develop an understanding of the shared and different worlds lived and experienced by the diverse communities of East London.

The project will document the memories of forty community poets through oral history and collect 100 Bengali and English poems. These will be included in a printed publication and exhibited in arts and cultural venues across East London in 2017.

We are also looking for volunteers for other roles:

  1. Events and Publicity Volunteers

We are seeking two volunteers to assist the project manager in organising the launch of the publication and touring exhibition.

  1. Transcribers and Proof Readers/Editors

We are seeking volunteers to transcribe interviews carried out in English and proofread and edit transcribed materials.

  1. Bengali speaking interpreters

We are seeking volunteers who will be able to assist non – Bengali Speaking Oral History volunteers to interview Bengali speaking participants with language barriers.

  1. Online Exhibition Assistant Producer

We are going to be producing an online exhibition showcasing snippets from the collection. We are seeking volunteers with website management experience.

Application Deadline for Oral History Volunteers and Events & Publicity Volunteers:

28 February 2016

Please view the Volunteer pack for further information.

To find out more information about the organisation please visit our website www.shanghatioralhistory.com

Home [www.shanghatioralhistory.com]

www.shanghatioralhistory.com

Shanghati Literary Society is a renowned name amongst Bengali and the non-Bengali communities around the world. It was established in 1989 by a small group of poets …

For any queries please email faridha.karim@shanghatioralhistory.com

Faridha Karim | Project Manager

Poetry the Inseparable part of Bengali Life 1960 – 1980

Shanghati Literary Society | 83-85 Nelson Street | London | E1 2HN
07427 832 361

The project aims to help reveal the rich heritage of poetry in East London during 1960-1980, primarily by Bengalis, through oral history and collecting community poems.
TWITTER: Poetic_EastEnd
FACEBOOK: Shanghati Oral History Project

Get Involved
Become a Volunteer
1. Oral History Volunteer
2. Publicity and Events Volunteer

Do you know any First Generation Bangladeshi poets living in the East End betwen 60s to 80s?
Get in touch Faridha.Karim@Shanghatiporalhistory.com

Posted in সাম্প্রতিক, Home, Home (English), Uncategorized | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

গ্লোবরোড কবিতা উৎসবে সংহতির দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য কবিতা উৎসব অনুষ্ঠিত

 547 আনোয়ারুল ইসলাম অভি : কুইনমেরী ইউনিভার্সিটির আয়োজনে তিনদিন ব্যাপী গ্লোবরোড কবিতা উৎসবের শেষ দিনে সংহতির আয়োজনার মধ্যে ছিল কবিতা, গান ও আবৃত্তি। তাড়াও শিশুশিল্পীদের দলীয় পরিবেশনায় কবিতা উৎসবের অনুষ্ঠানটি ছিল আকর্ষণীয় এবং সর্বজন প্রশংসিত।

521

তিন দিনব্যাপী উৎসবে বিলেতের মূলধারার কবিদের স্বত:স্ফুর্ত অংশ গ্রহণে উৎসবটি ছিল দর্শক নন্দিত ও প্রাণবন্ত। গ্লোবরোড কবিতা উৎসবে সংহতি সাহিত্য পরিষদ সহযোগী সংগঠন হিসাবে কাজ করে। উল্লেখ্য গ্লোবরোড কবিতা উৎসব বিলেতে মূলধারার কবি সাহিত্যিকদের কাছে একটি উল্লেখযোগ্য মানের কবিতা উৎসব হিসাবে বিবেচিত হয়ে আসছে।
ইউনিভার্সিটির অক্টাগন হলে ১৫ নভেম্বর বেলা ১টা থেকে ৪টা পর্যন্ত চলা উক্ত অনুষ্ঠানে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কবি ও কবিতা অনুরাগী দর্শকরা অংশ নেন।

553
সংহতি সাহিত্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কবি আবু তাহের এর স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংহতির সভাপতি ফারুক আহমেদ রনি ও গ্লোবরোড কবিতা উৎসবের  পক্ষ থেকে প্রফেসর এন্ডরিয়া ব্রাডি। প্রানবন্ত অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন ইরিনা সুলতানা জাহিন। অনুষ্ঠানটির  তত্বাবধানে ছিলেন-সেলিম উদ্দিন, হেলাল উদ্দিন, সৈয়দা নাজমিন সুলতানা,নাজমুল হক আনাই প্রমূখ।

শিল্পী মিতা তাহের এর পরিচালনায় সঙ্গীত পরিবেশন করেন সংহতির শিশুশিল্পীরা। বাংলা ভাষার অন্যতম কবিদের  কবিতা আবৃত্তি করেন-বিশিষ্ট আবৃত্তিকার শহিদুল ইসলাম সাগর, সালাউদ্দিন শাহীন, মুনিরা পারভিন ও শতরুপা চক্রবর্তী।

560
স্বরচিত কবিতা পাঠে অংশগ্রহণ করেন- কবি শামীম আজাদ, কবি গোলাম কবির, কবি হামিদ মোহাম্মদ, কবি ফারুক  আহমেদ রনি, কবি দিলু নাসের, কবি আবু তাহের, কবি মজিবুল হক মনি, কবি রেজুয়ান মারুফ, কবি তুহীন চৌধুরী, কবি ইকবাল হোসেন বুলবুল, কবি সাইফ উদ্দিন বাবর, কবি লোকমান আহমেদ, কবি ফারাহ নাজ, কবি এ কে এম আব্দুল্লাহ, কবি এম মোসাইদ খান, কবি জামিল সুলতান, কবি আরাফাত তানিম, কবি উদয় শংকর দুর্জয়, কবি মোহাম্মদ মুহিদ, কবি আসমা মতিন, সুফিয়া জামিন নুরুজ, কবি নজরুল ইসলাম ও কবি আনোয়ারুল ইসলাম অভি।এছাড়াও নতুন প্রজন্মের আফরা রহমান খন্দকার ও জারা হক স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন।

অনুষ্ঠানে ইংরেজ কবি ষ্টিফেন ওয়াটস ইষ্ট লন্ডনের বাঙালী প্রজন্মদের নিয়ে রচিত তার বিখ্যাত কবিতা পাঠ  হল ভর্তি দর্শকরা মুগ্ধতায় উপভোগ করেন। এছাড়াও আবৃতি শিল্পী মুনিরা পারভিন ও শতরুপা চক্রবর্তী কবি গুরু রবীন্দ্রনাথের আলো আমার আলো-গাণটি বাংলা ও ইংরেজী ভাষায় আবৃতির মাধ্যমে উপস্থাপন করেন এবং এই ব্যতিক্রমী পরিবেশনা দর্শকদের মুগ্ধ করে।

Posted in Uncategorized | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

Globe Road Poetry Festival

Robot poets, international names, slams and debate at the inaugural Globe Road Poetry Festival

Some of the world’s best known international poets will perform in East London this November at the inaugural Globe Road Poetry Festival.

Thursday 10 September 2015

Curated by Andrea Brady, Professor of Poetry at Queen Mary University of London, the three day festival (November 13 – 15), celebrates the diversity of local and global poetic traditions in London’s ever-changing East End. The festival includes free readings, artificial intelligence workshops with poetry ‘bots’, performance workshops, musical performances, exhibitions and a poetry slam competition for local school children.

Professor Brady said: “From the anti-fascist Basement Writers of the 1970s, to the hugely popular contemporary Bangla and slam poetry scenes, the borough has always been a melting pot of languages, cultures and literatures. The festival brings together poets and performers of all backgrounds to celebrate the stunning array of international poetry available on our doorstep.”

Included in the programme are free readings from internationally renowned poets Linton Kwesi  Johnson, Myung Mi Kim, Daljit Nagra, Kaiser Haq and M. NourbeSe Philip. The theme of the 2015 festival is Translation and Technology. A series of taster events, as well as more than ten free events on the festival weekend, will explore how translation and technology can both create and bridge divides, enable new forms of creativity and engage new audiences with traditional and experimental poetic forms.

Professor Brady added: “The programme has a global perspective but the heart of the festival is firmly is East London. Poetry should be inclusive, and these free events are for the whole community. We want to attract a diverse audience and we hope that there’s something at the festival for everyone, regardless of age, background or language.”

The festival takes place at Queen Mary University of London (and associated venues in the Tower Hamlets) on the weekend of 13 – 15 November 2015. The vast majority of the events are free, and have been developed with the support, expertise and guidance of local arts, educational and community groups. The festival is funded by the Arts Council England and the QMUL Centre for Public Engagement.

Festival programme and tickets

Taster events (October / November)

A masterclass for young and aspiring writers, led by writer, theatre-maker, and performer Sid Bose
Saturday 10 October, 2015, 2pm – 4pm [Free]
Details and tickets >>

Performances from Roundhouse collectives ‘Spare the Poets’ and ‘Kid Glove’
Wednesday 11 November, 2015, 7pm – 8.30 pm [Free]
Details and tickets >>

Readings about the history of the ground-breaking Basement Writers and the Stepney School Strike
Thursday 12 November, 2015, 7.30pm – 10pm [Free]
Details and tickets >>

Festival opening and schools day (13 November)

East End Schools poetry slam competition judged by Young Poet Laureate, Aisling Fahey
Friday 13 November, 2015, 11am – 1pm [Free]
Attendance is for school children only

Performances by rising stars Avaes Mohammed, Sid Bose, and Young Poet Laureate Aisling Fahey
Friday 13 November, 2015, 5pm – 7pm [Free]
Details and tickets >>

Inaugural reading: Linton Kwesi Johnson (and panel of world renowned poets)
Friday 13 November, 2015, 8pm – 10pm [£5 waged or £3 unwaged]
Details and tickets >>

Poetry and technology (14 October)

Poetry and Technology: A workshop for young people
Saturday 14 November, 11am – 1pm [Free]
Details and tickets >>

Workshop: Poetry, Artificial Intelligence and Computational Creativity
Saturday 14 November, 12pm – 6 pm [Free]
Details and tickets >>

Poetry across languages (15 November)

A walking tour investigating poetry in the backstreets of Mile End
Sunday 15 November, 11am – 12.30 pm [Free]
Details and tickets >>

An afternoon of Bangla poetry and performance from Shanghati Literary Society
Sunday 15 November, 1pm – 3pm [Free]
Details and tickets >>

Poetry across borders: a debate on the value of poetry in a globalised world
Sunday 15 November, 4pm – 6pm [Free]
Details and tickets >>

The closing performance: readings from internationally renowned poets
Sunday 15 November, 7pm – 8.30 pm [Free]
Details and tickets >>

Posted in Uncategorized | এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান